ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স – ভ্রমণ করুন সবচাইতে সাশ্রয়ী এয়ারলাইন্সে

বিমান ভ্রমণের আগে আমাদের মাথায় যে কথা গুলো আসে সেগুলোর মধ্যে একটি হল, বিমান ভাড়া অত্যন্ত বেশী। কথাটা পুরোপুরি অযৌক্তিকও না। যেহেতু আকাশ পথে ভ্রমণ এবং খুব কম সময়ের মধ্যে আপনি আপনার গন্তব্যে পৌছাতে পারছেন, সেহেতু এটা স্বাভাবিক যে আপনাকে বেশ বড় অংকের টাকা গুনতে হবে টিকিটের দাম বাবদ।

তবে সব এয়ারলাইন্সের ভাড়া কিন্তু একরকম না। কিছু কিছু এয়ারলাইন্স আছে যাদের ব্যাবসার মুল লক্ষ্য থাকে সর্বনিম্ন খরচে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দেয়া। স্বাভাবিকভাবেই এসব এয়ারলাইন্সের টিকিট অনেক বেশী বিক্রি হয়, তাই তারা পুষিয়ে নিতে পারে। এই এয়ারলাইন্সগুলোকে বাজেট এয়ারলাইন্স বলা হয়ে থাকে। আমরা যারা সাধারণ, পরিশ্রমী এবং মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘরের মানুষ, তাদের জন্য এই সব বাজেট এয়ারলাইন্স অনেকটা আশীর্বাদের মত।

ভারত বিশাল একটি দেশ এবং এখানে প্রচুর স্বল্প আয়ের মানুষ আছে যাদের অনেক সময়েই বিভিন্ন কাজে বিমান ভ্রমণ করতে হয়। এই স্বল্প আয়ের মানুষদের সীমাবদ্ধতার কথা মাথায় রেখেই ভারতের বেশ কিছু এয়ারলাইন্স কাজ করছে। এর মধ্যে সবার আগে চলে আসে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের নাম।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স
ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের এয়ারবাস ৩২০ – ২০০

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স ভারতের বৃহত্তম এবং সমগ্র এশিয়ার মধ্যে সপ্তম বৃহত্তম এয়ারলাইন্সের মর্যাদা নিয়ে বর্তমানে তাদের ফ্লাইট পরিচালনা করছে। ফ্লাইট পরিচালনার দিক থেকেও তারা ভারতে সর্বচ্চ রেকর্ড দৃষ্টি করেছে। ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে তারা দৈনিক ৯০০ ফ্লাইট পরিচালনার রেকর্ড মাইলফলক অর্জন করে। বর্তমানে এই ফ্লাইট সংখ্যা আরও বেড়েছে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত পাওয়া হিসাব অনুযায়ী ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স বর্তমানে দৈনিক ১২০০ ফ্লাইট পরিচালনা করছে। ২০১৮ এর জুন মাস পর্যন্ত প্রাপ্ত হিসাব অনুযায়ী ভারতের এয়ারলাইন্স ইন্ডাস্ট্রির মার্কেট শেয়ারের ৪২.১ শতাংশের মালিক ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স, যা একক ভাবে ভারতের মধ্যে সর্বচ্চ। এই শেয়ারের মাত্রা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে যা ইন্ডিগোর ক্রমবর্ধমান সফলতার নিদর্শন। এক কথায় বলা চলে, ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স ভারতের সর্ববৃহৎ তথা সবচাইতে সাশ্রয়ী এয়ারলাইন্স।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

ইন্টারগ্লোব এন্টারপ্রাইজের রাহুল ভাটিয়া এবং ভারতীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান ব্যাবসায়ি রাকেশ গাংওয়াল এর উদ্যোগে ২০০৫ সালে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স স্থাপিত হয়। যাত্রী সেবা দেয়ার জন্য ১০০ টি এয়ারবাস ৩২০-২০০ এর অর্ডার করা হয়। ২০০৬ সালে অফিশিয়ালি যাত্রা শুরু করে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স।

প্রথম থেকেই ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের লক্ষ্য ছিল কম টাকায় যাত্রীদের বিমান সেবা দেয়ার। সে জন্য প্রথম থেকেই তারা টিকিটের দাম অন্য যেকোন এয়ারলাইন্সের চাইতে কম রাখা শুরু করে। আবার সেই সাথে বেশ উন্নত সার্ভিসও প্রদান করতে থাকে। এজন্য খুব কম সময়ের মধ্যেই সাধারণ যাত্রীদের মাঝে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স। প্রতিষ্ঠার মাত্র ৩ বছরে মাথায় তাদের বিমান সংখ্যা দাড়ায় ১৫ টি। এ সময়েই তারা ১৭.৩% মার্কেট শেয়ার নিয়ে ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সকে পিছে ফেলে ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম এয়ারলাইন্সে পরিনত হয়। ২০১২ সালের মধ্যে তাদের বিমান সংখ্যা দাড়ায় ৫০ টি তে এবং সেই সাথে সর্বোচ্চ মার্কেট শেয়ার নিয়ে তারা ভারতের বৃহত্তম বিমান সংস্থায় পরিণত হয়।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর গন্তব্য সমূহ

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স বর্তমানে ৫৯ টি গন্তব্যে তাদের ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এর মধ্যে ৪৮ টি আভ্যান্তরীন গন্তব্য (ভারতের ভিতরে) এবং ১১ টি আন্তর্জাতিক গন্তব্য রয়েছে। এই সবগুলো গন্তব্যে যাত্রীদের চাহিদা মিটাতে দৈনিক ১২০০ এরও বেশী ফ্লাইট পরিচালনা করে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স। তাদের প্রধান হাব দিল্লীর ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবস্থিত।

৪৮ টি অভ্যান্তরীন গন্তব্যের ভিতরে ভারতের সব কয়টি প্রধান শহরই রয়েছে। এছাড়া আন্দামান ও নিকবর দ্বিপপুঞ্জ  এবং জম্মু, কাশ্মীর ও শ্রীনগরে ফ্লাইট পরিচালনা করে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স।

প্রধানত আভ্যান্তরিন ফ্লাইটকে প্রাধান্য দিলেও আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের ক্ষেত্রেও ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর আন্তর্জাতিক গন্তব্যগুলো হলঃ

  • ঢাকা
  • কুয়েত সিটি
  • কুয়ালালামপুর
  • কাঠমান্ডু
  • মাস্কট
  • দোহা
  • সিঙ্গাপুর
  • কলম্বো
  • ব্যাংকক
  • আবুধাবি
  • দুবাই
  • শারজাহ

২০০৬ সালে যাত্রা শুরু করার পর এখন পর্যন্ত ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স সফলতার সাথে প্রায় ৪ কোটি ৬৫ লাখেরও বেশী বিমান যাত্রিকে সেবা দিতে পেরেছে। বর্তমানে প্রতি মাসে গড়ে ৪.৮৫ মিলিয়ন যাত্রীকে সেবা দিচ্ছে এই বিমান সংস্থা, এবং এই সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স
ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের এয়ারবাস – ৩২০ NEO

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের বিমান বহর

এতো বিশাল সংখ্যক গন্তব্যে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করতে বেশ বড় বিমান বহরের প্রয়োজন। ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স সেদিক থেকে কোন কমতি রাখেনি। তাদের যাত্রা শুরু হয় ১০০ টি এয়ারবাস ৩২০-২০০ অর্ডার করার মাধ্যমে। উপমহাদেশের অন্য কোন বিমান সংস্থা শুরুতেই এত বড় অর্ডার দিতে পারেনি। বর্তমানে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর মোট ১৬২ বিমান সক্রিয় ভাবে সার্ভিস দিচ্ছে। বিমান যাত্রীদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে আরও ৪৪৪ টি  বিমানের অর্ডার করা হয়েছে। উল্লেখ্য এই যে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর সব গুলো বিমানই এয়ারবাস থেকে নেয়া এবং প্রত্যেকটি বিমানই নতুন অবস্থায় কেনা। মান নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে আপোষহীন ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এখন পর্যন্ত কোন রিকন্ডীশন বা পুরাতন বিমান ক্রয় করেনি।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর বর্তমান বিমান বহর

  • এয়ারবাস ৩২০-২০০ – মোট ১২৬ টি বিমান সার্ভিসরত
  • এয়ারবাস ৩২০ Neo – মোট ৩২ টি বিমান সার্ভিসরত
  • এটিআর ৭২-৬০০ – মোট ৪ টি বিমান সার্ভিসরত

সর্বমোটঃ ১৬২ টি বিমান

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স আসন বিন্যাস

বাজেট এয়ারলাইন্সের সিট গুলো সাধারণত স্ট্যান্ডার্ড মানের হয়ে থাকে। টিকিটের দাম অন্যান্য এয়ারলাইন্স অপেক্ষাকৃত কম, তাই খুব বেশী লেগ রুম আশা করা ঠিক হবে না। এখানে সাধারণত টিভি দেখার মনিটর বা মোবাইল চার্জের মত সুযোগ সুবিধাগুলো থাকেনা। তবে বাজেট এয়ারলাইন্স হবার পরও ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স তাদের সিটের যে মান বজায় রেখেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। এয়ারবাস ৩২০ সিরিজের বিমানগুলোতে ৩-৩ স্টাইলে আসন বিন্যাস করেছে। এতে করে সর্বচ্চ সংখ্যক যাত্রী পরিবহন সম্ভব। আরামদায়ক ভ্রমণ নিশ্চিত করতে সিটগুলোতে রেক্সিনের পরিবর্তে উন্নত মানের ফেব্রিক্স ব্যাবহার করা হয়েছে। বিমান গুলোতে ১৮৬ জন যাত্রী ভ্রমণ করতে পারবেন।

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স
ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর আসন

বাংলাদেশে  ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স

ভারতে সফলতার সাথে বিমান সেবা দেয়ার পর ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স চলতি বছর (২০১৮) আগস্ট মাস থেকে বাংলাদেশে তাদের সেবা দেয়া শুরু করেছে। প্রথম দিকে তারা শুধু ঢাকা কোলকাতা ফ্লাইট দিয়ে নিজেদের সার্ভিস শুরু করেছে। এজন্য তারা সপ্তাহে ৭ টি ঢাকা – কলকাতা ফ্লাইট বরাদ্দ রেখেছে। যাত্রী পরিবহনের জন্য  ব্যাবহার করা হবে অত্যাধুনিক এয়ারবাস ৩২০ সিরিজের বিমান গুলো। ১৮৬ জন যাত্রী ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন বিমান গুলো ঢাকা থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে। প্রমোশনাল অফার হিসেবে ওয়ানওয়ে ভাড়া নির্ধারিত হয়েছে জনপ্রতি  ৪ হাজার ৯১৮ টাকা। রির্টান সহ টিকিটের মূল্য রাখা হবে ৭ হাজার ৮৫ টাকা।

বাংলাদেশ থেকে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এর টিকিট কিভাবে কাটবেন

ইন্ডিগো এয়ারলাইন্সের টিকিট কাটতে পারবেন অনলাইনেই। যারা কম মুল্যে অনলাইনে এয়ার টিকিট কিনতে চান তারা ফ্লাইট এক্সপার্টের ওয়েবসাইট থেকে ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স সহ যেকোন বিমানের যেকোন গন্তব্যের  টিকিট কাটতে পারবেন অতি সহজেই, ঘরে বসেই। ওয়েবসাইটঃ https://www.flightexpert.com

পেমেন্ট করতে পারবেন ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড, বিকাশ, মোবাইল ব্যাংকিং ও নগদ টাকায়।

কোন প্রশ্ন থাকলে ফোন করুনঃ +৮৮-০৯৬১৭-১১১-৮৮৮ অথবা ০১৮৪৭-২৯১-৩৮৮

যোগাযোগের ঠিকানা:

ঢাকা অফিস –

৯০/১ মতিঝিল সিটি সেন্টার

লেভেল ২৫ – বি -১, (লিফটের ২৬ তলা )

মতিঝিল , ঢাকা – ১০০০

 

চট্টগ্রামের সম্মানিত যাত্রীদের বিশেষ সেবা দেয়ার জন্য সম্প্রতি ফ্লাইট এক্সপার্ট তাদের প্রথম শাখার উদ্বোধন করেছে চট্টগ্রামে। এই অফিস থেকে যেকোন গন্তব্যের বিমান টিকিট কেনা থেকে শুরু করে বিমান ভ্রমণ সংক্রান্ত সব ধরনের সেবা দেয়া হবে। ফ্লাইট এক্সপার্টের চট্টগ্রাম অফিসের ঠিকানাঃ

ফ্লাইট এক্সপার্ট (চট্টগ্রাম অফিস)

আইয়ুব ট্রেড সেন্টার

১২৬৯/বি, এস কে মুজিব রোড

আগ্রাবাদ বা/এ, চট্টগ্রাম।

যেকোন ডোমেস্টিক বা ইন্টারন্যাশনাল রুটে ফ্লাইট বুকিং, হোটেল বুকিংসহ ভ্রমণবিষয়ক যেকোন তথ্যের জন্য আমাদের ফোন করুন এই নম্বরেঃ +৮৮০ ৯৬১৭ ১১১ ৮৮৮ অথবা ০১৮৪৭-২৯১-৩৮৮ অথবা ভিজিট করুনঃ www.flightexpert.com

Book Cheap Air Tickets Now

 

কিভাবে অনলাইনে বিমান টিকিট কাটবেন সে বিষয়ে আপনাদের সহযোগিতা করার জন্যে আমাদের ভিডিও টিউটোরিয়ালঃ

Blogger. Music enthusiast. Free thinker.

Assistant Manager
Flight Expert.

www.flightexpert.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Top Tourist Attractions In Cairo
Previous post
Top Tourist Attractions In Melbourne
Next post