ড্রিমলাইনার ৭৮৭ – আকাশবীণা ও হংস বলাকা – বাংলাদেশ বিমানের সর্বাধুনিক সংযোজন

দশ বছর আগে বোয়িং এর সাথে বিমান বাংলাদেশের চুক্তি হয় চারটি ড্রিমলাইনার ৭৮৭ কেনার। সেই চুক্তি অনুযায়ী এ পর্যন্ত দুটি ড্রিমলাইনার বিমান হস্তান্তর করা হয়েছে বাংলাদেশ বিমানের কাছে। প্রথম বিমানটি এসে পৌছায় সেপ্টেম্বর মাসে। এর নাম রাখা হয় আকাশবীণা।

বিষয়টি বাংলাদেশের তথা প্রবাসি বাংলাদেশী বিমান যাত্রীদের মধ্যে বেশ উত্তেজনার সৃষ্টি করে। এর কারন ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর অত্যাধুনিক সব ফিচারস, যেগুলো বাংলাদেশ তো বটেই, অনেক উন্নত রাষ্ট্রের কাছেও বেশ চমপ্রদ এবং নতুন একটি ব্যাপার। ২৭১ আসন বিশিষ্ট বিমানটি বর্তমানে ঢাকা থেকে রিটার্ন সহ কুয়ালালামপুর ও সিঙ্গাপুরে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

ড্রিমলাইনার ৭৮৭
বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা বাংলাদেশ বিমানের দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার হংস বলাকা উদ্বোধন করেন এবং এর ককপিটে কিছু সময় কাটান। ছবি কৃতজ্ঞতাঃ জাগো নিউজ

দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার ৭৮৭-৮ বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে ডিসেম্বর মাসে। এর নাম করন করা হয়েছে হংস বলাকা। এর মাধ্যমে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে বিমান সংখ্যা বেড়ে গিয়ে দাঁড়াল ১৫ টি।

উল্লেখ্য এই যে দুটো বিমানের নামকরণ করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা।

বাংলাদেহ বিমানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এম মোসাদ্দিক আহমেদ এর ভাষ্য অনুযায়ী বিমানটি দিয়ে সপ্তাহে ঢাকা-লন্ডন রুটে ছয়টি ফ্লাইট, ঢাকা-দাম্মাম রুটে চারটি ফ্লাইট ও ঢাকা-ব্যাংকক রুটে তিনটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।

ড্রিমলাইনার ৭৮৭
বাংলাদেশ বিমানের প্রথম ড্রিমলাইনার ৭৮৭ – আকাশবীণা। সুত্রঃ জনাব শাকিল মিরাজ, জি এম, বাংলাদেশ বিমান

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর বিশেষ সুবিধা সমূহ

নতুন ড্রিমলাইনার ৭৮৭ গুলোতে যাত্রীদের জন্য ফ্লাইট চলাকালিন সময়ে ওয়াইফাই ইন্টারনেট ব্যাবহার ও ফোন কল করার মত অত্যাধুনিক সুবিধাগুলো থাকবে যেগুলো আগে ছিল না। মাটি থেকে ৪৫/৪৬ হাজার ফুট উচ্চতায় মোবাইল নেটওয়ার্ক স্বাভাবিক ভাবেই থাকে না। তাই বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয়। সমগ্র প্রক্রিয়াটি বেশ জটিল এবং এজন্য অত্যাধুনিক সিস্টেমের সন্নিবেশ প্রয়োজন যা অনেক বিমানেই নেই। ড্রিমলাইনার ৭৮৭ সেদিক থেকে অনেক এগিয়ে আছে। এছাড়া আরও আছে লাইভ টিভি এবং ম্যুভি দেখার সুব্যাবস্থা। মনিটরে আপনার রুটের থ্রিডি ম্যাপ দেখার সুব্যাবস্থাও রয়েছে

আকাশপথেই ওয়াই ফাই ইন্টারনেট ব্যাবহার ও ফোন করার সুব্যাবস্থা

বাংলাদেশের বিমান সার্ভিসের ইতিহাসে এই প্রথম যাত্রীদের জন্য ইন্টারনেট সেবা চালু করেছে বাংলাদেশ বিমান। ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর যাত্রীরা থ্রিজি গতি সম্পন্ন ওয়াই ফাই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন মাটি থেকে ৪৫,০০০ ফিট উপরে থেকেও। এতে যাত্রীরা সহজেই ইন্টারনেট ব্রাউজিং, সোশ্যাল মিডিয়া, অনলাইন গেমস সহ যাবতীয় ইন্টারনেট ফিচার সমূহ উপভোগ করতে পারবেন। বিমানে থাকা অবস্থাতেও তারা তাদের পরিবার ও বন্ধু বান্ধবের সাথে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ রাখতে পারবেন। যাত্রাপথেই সেরে নিতে পারবেন ই-মেইল, ভিডিও চ্যাট ও বিভিন্নও ডাটা চেকিং এর মত গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

ড্রিমলাইনার ৭৮৭
ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর ইকোনমি ক্লাসের আসন বিন্যাস – প্রতিটি আসনের পেছনে আছে মনিটর। ছবিঃ বাংলাদেশ বিমান

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর ইন্টারনেট এর চার্জ কেমন?

বিমান বাংলাদেশ তাদের সর্বচ্চ চেষ্টা করেছে যাত্রীদের কম মুল্যে ওয়াই ফাই ইন্টারনেট সেবা প্রদান করার। বিমান বাংলাদেশের নিয়ম অনুযায়ী যাত্রীরা ১৫ মিনিটে দশ মেগাবাইট পর্যন্ত ওয়াই ফাই ব্যাবহার করতে পারবেন বিনামূল্যে। ১০ মেগা বাইট ডাটা শেষ হবার পর যদি কেউ ইন্টারনেট ব্যাবহার চালিয়ে যেতে চান, তাহলে সেক্ষেত্রে আলাদা চার্জ প্রযোজ্য হবে। চার্জ নিম্নরূপঃ

  • ১০০ মেগা বাইট – ৮ ইউ এস ডলার
  • ৩০০ মেগাবাইট – ১৬ ইউ এস ডলার

যারা আরও বেশী ইন্টারনেট ব্যাবহার করতে চান তাদের জন্য ৬০০ মেগাবাইটের প্যাকেজও আছে। বিশেষ অফার হিসেবে বিমান বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রত্যেক যাত্রীকে উপহার স্বরূপ ফ্রি ২০ মেগাবাইট ডাটাও প্রদান করা হবে।

বহুল প্রত্যাশিত এই ইন্টারনেট সেবা গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর জন্য বিমান বাংলাদেশ অত্যন্ত তৎপর ছিল। এজন্য প্রায় ৪ কোটি টাকার একটি বিশেষ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। এ ব্যাপারে কারিগরি সহযোগিতার জন্য বিমান বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত প্যানাসনিক অ্যাভিয়েশন কর্পোরেশনের সাথে চুক্তিও সম্পাদিত করেছে। চুক্তি অনুযায়ী প্যানাসনিক অ্যাভিয়েশন কর্পোরেশনে তাদের নিজস্ব স্যাটেলাইটের সিস্টেমের মাধ্যমে ডাটা ট্রান্সফারের প্রক্রিয়াগুলো সম্পন্ন করবে। ডাটার অবাধ আদান প্রদান নিশ্চিত করতে এজন্য তারা ২৫ টি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন স্যাটেলাইট ব্যাবহার করবে। এর মাধ্যমে আক্ষরিক অর্থেই যাত্রীরা সবসময় ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত থাকতে পারবেন।

এর আগে বিটিআরসি ‘র কাছে আবেদনের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ বিমানকে ফ্লাইট চলাকালিন সময়ে ইন্টারনেট ও ফোন কল ব্যাবহার করার অনুমতি দেয়া হয়। তবে এক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্ত প্রযোজ্য হবে যেমনঃ

  • টেক অফ এবং ল্যান্ডিং এর সময় ইন্টারনেট ও ফোন কল সার্ভিস বন্ধ থাকবে।
  • বিমান উড্ডয়নের পর ৬ হাজার মিটার উচ্চতায় পৌঁছানোর পর সার্ভিসটি ব্যাবহার করা যাবে।
  • ফোন কলের ক্ষেত্রে লোকাল মোবাইল অপারেটরদের হিসাব অনুযায়ী বিল নির্ধারিত হবে।
  • বাৎসরিক ফি হিসেবে বিটিআরসি ‘কে ২০০০ ইউ এস ডলার পরিশোধ করবে বাংলাদেশ বিমান।
ড্রিমলাইনার ৭৮৭
ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর বিজনেস ক্লাস এর আসন সমূহ। ছবিঃ বাংলাদেশ বিমান

লাইভ টিভি এবং ম্যুভি দেখার ব্যাবস্থা

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর আসনগুলোর সাথে প্যানাসনিকের নতুন ই এক্স মনিটর সংযুক্ত থাকবে। চমৎকার রেজুলেশন বিশিষ্ট এই মনিটরগুলোতে যাত্রীরা ১০০ টিরও বেশী অন ডিমান্ড মুভি উপভোগ করতে পারবেন। আরও থাকছে লাইভ টিভি দেখার ব্যাবস্থা। বিবিসি, সিএনএন সহ মোট ৯ টি জনপ্রিয় চ্যানেল দেখা যাবে এখান থেকে।

বিশেষ থ্রিডি ম্যাপ

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এ আরও থাকবে থ্রিডি রুট ম্যাপ। এর মাধ্যমে ডিসপ্লেতে বিমান যেখান দিয়ে উড়ে যাবে তার নিচের সব স্থাপনাগুলো দেখতে পাবেন যাত্রীরা। এটি একটি চমৎকার অভিজ্ঞতা হবে আপনার জন্যে। কল্পনা করুন, আপনি হয়তো আপনার প্রিয়জনের আবাসস্থলের উপর দিয়্যে উড়ে যাচ্ছেন বিমানে। আপনি সাথে সাথে ব্যাপারটা তাঁকে জানাতে পারবেন মেসেজ অথবা ফোন দিয়ে। একই সাথে আপনার প্রিয়জনের আবাসস্থল দেখতে পাবেন থ্রিডি মনিটরে!

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর বিমান টিকিট

যারা নায্য মুল্যে ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর টিকিট কিনতে চান তারা অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি ফ্লাইট এক্সপার্টের ওয়েবসাইট থেকে ড্রিমলাইনার ৭৮৭ সহ  যেকোন বিমানের যেকোন গন্তব্যের  টিকিট কাটতে পারবেন অতি সহজেই, ঘরে বসেই।

বর্তমানে বাংলাদেশ বিমানের হাটে পৌঁছানো একমাত্র ড্রিমলাইনার ৭৮৭ টি ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুর ও কুয়ালালামপুরে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।

  • ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরের ভাড়া পড়বে ২১,৪৩৩ টাকা থেকে ২৭,৮২৩ টাকা*
  • ঢাকা থেকে কুয়ালালামপুরের ভাড়া পড়বে ২০,৬৪৫ টাকা থেকে ২৬,৭৭৯ টাকা*

টিকিট বুক করতে ভিজিট করুনঃ https://www.flightexpert.com

পেমেন্ট করতে পারবেন ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড, বিকাশ, মোবাইল ব্যাংকিং ও নগদ টাকায়।

কোন প্রয়োজনে ফোন করুনঃ +৮৮-০৯৬১৭-১১১-৮৮৮ অথবা ০১৮৪৭-২৯১-৩৮৮

যোগাযোগের ঠিকানাঃ

৯০/১ মতিঝিল সিটি সেন্টার

লেভেল ২৫ – বি -১, (লিফটের ২৬ তলা )

মতিঝিল , ঢাকা – ১০০০

উল্লেখ্য এই যে, বিমান ভাড়া পরিবর্তনশীল। ভ্রমণের তারিখ, সময়, আসন এর সহজলভ্যতা সহ আরও অনেক কিছুর উপর ভিত্তি করে ভাড়া কম বা বেশী হতে পারে। এই বিষয়ে বিমান বাংলাদেশের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গন্য হবে। **

Book Cheap Air Tickets Now

 

ড্রিমলাইনার ৭৮৭

 

কিভাবে অনলাইনে বিমান টিকিট কাটবেন সে বিষয়ে আপনাদের সহযোগিতা করার জন্যে আমাদের ভিডিও টিউটোরিয়ালঃ

ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর সম্পর্কে আরও কিছু চমপ্রদ তথ্য

  • বিমান ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর মোট আসন সংখ্যা ২৭১ টি। এর মধ্যে ২৪ টি বিজনেস ক্লাস ও ২৪৭ টি ইকোনমি ক্লাস আসন রয়েছে।
  • বিজনেস ক্লাসে ২-২-২ স্টাইলে এবং ইকোনমি ক্লাসে ৩-৩-২ স্টাইলে আসন সন্নিবেশ করা হয়েছে। সিটগুলো অনেক উন্নতমানের এবং আরামদায়ক। লেগ রুম বা পা রাখার জন্যে যথেষ্ট পরিমান যায়গা আছে।
  • ড্রিমলাইনার ৭৮৭ বিমানটি একটানা ১৪,৫০০ কিলোমিটার চলতে সক্ষম। তাঁর মানে এই বিমান ঢাকা থেকে নিউইয়র্ক বা লন্ডন থেকে পার্থ (অস্ট্রেলিয়া) এর মত লম্বা দূরত্বের ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারবে কোন রকম বিরতি ছাড়াই।
  • মডেল এবং কনফিগারেশন ভেদে এক একটি ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর দাম হয়ে থাকে ১৪৬ মিলিয়ন থেকে ২০০ মিলিয়ন ইউ এস ডলার।
  • ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর জানালাগুলো এখন পর্যন্ত নির্মিত সমস্ত বিমানের মধ্যে বৃহত্তম। এর সাইজ ৪৭ x 2৮ সেন্টিমিটার (১৯ ইঞ্চি লম্বা)। বোয়িং এর মতে এই জানালা অন্য যেকোন বিমান থেকে ৬৫% বেশী বড়।
  • সবচাইতে ইকো ফ্রেন্ডলি বা পরিবেশ বান্ধব বিমানের স্বীকৃতি পেয়েছে ড্রিমলাইনার ৭৮৭ । প্রথমত এর তেল খরচ অন্যান্য বিমান থেকে ২০% কম। দ্বিতীয়ত, এটাই প্রথম এয়ারক্রাফট যার এয়ার ফ্রেম তৈরিতে কম্পজিট উপাদান ব্যাবহার করা হয়েছে।
  • একটি খালি ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর ওজন ১১৭,৬১৭ কিলোগ্রাম, যা ২৯ টি হাতীর ওজনের সমান!
  • ড্রিমলাইনার ৭৮৭ বিমানটি ১৮৬ ফুট লম্বা। ২ পাখার প্রশস্ততা ১৯৭ ফুট। উচ্চতা মাটি থেকে ৫৬ ফুট।
  • এর গড় গতিবেগ ঘণ্টায় ৬৫০ কিলোমিটার।
  • এ পর্যন্ত ১১০০ এরও বেশী ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর অর্ডার পেয়েছে বিভিন্ন দেশ থেকে। জাপানের অল নিপ্পন এয়ার সর্ব প্রথম ড্রিম লাইনার তাদের বহরে সংযুক্ত করে।
  • ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর মোট যন্ত্রাংশের সংখ্যা ২.৩ মিলিয়ন। সেই তুলনায় বোয়িং ৭৩৭ এ যন্ত্রাংশ ছিল মাত্র ৪ লাখ।

আশা করব এই লেখা থেকে ড্রিমলাইনার সম্পর্কে অনেক তথ্যই পেয়েছেন। তবে সত্যি বলতে, বাস্তব অভিজ্ঞতার চাইতে মজাদার আর কোন কিছুই নাই! তাই আর দেরি কেন, ড্রিমলাইনারের অভিজ্ঞতা পেতে আজই করে ফেলুন সিঙ্গাপুর অথবা কুয়ালালামপুরের ট্যুর প্ল্যান! আর বুক করে ফেলুন আপনার কাঙ্ক্ষিত ড্রিমলাইনারের এয়ার টিকিট

Book Cheap Air Tickets Now

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Top Tourist Attractions In Melbourne
Previous post
ইউ এস বাংলা এয়ারলাইন্সে ভ্রমণ – ইউ এস বাংলা বিমান টিকেট, গন্তব্য, ভাড়া, আসন সহ সব তথ্য
Next post
Reviewed by 46 People. - Rated: 4.0 / 5.0